comments 4

Quora – বর্তমান সময়ের সেরা প্রশ্ন-উত্তর সাইট

আমি যখন কম্পিউটার প্রোগ্রামিং নিয়ে পড়াশুনা শুরু করি বিশেষ করে কম্পিটিটিভ প্রোগ্রামিং নিয়ে কাজ করার সময় নানা প্রশ্নের উত্তর গুগলে সার্চ করতে হত। এখনো প্রতিদিন গুগল করতে হয়। তো গুগল করার সময় আমি মাঝে মাঝেই Quora সাইটের লিঙ্ক পেতাম। সেসব আর্টিকেলগুলো পড়ে আমার বেশ ভালো লেগেছিলো। সেই থেকেই আমার নিয়মিত Quora ব্যবহার শুরু। Quora আমার জন্য একটা গাইড, আমার সাইকোলজিক্যাল মেন্টর, মাই ইনটেকচুয়াল গ্যামিং সাইট। Quora পড়ে আমি শুরু থেকেই প্রচুর মজা পেয়েছি। এখানে যারা উত্তর লিখেন, আলাপ আলোচনা করেন – এদের বর্ণনার যে ধরণ সেটি আমাকে প্রতিদিন মুগ্ধ করে। আমার কখনো Quora কে মনে হয়েছে ফেসবুক, কখনো গুগল, কখনো ইয়াহু। Quora একাই সবকিছু!

আমাদের এই বাংলাদেশে আমার মনে হয়েছে Quora সাইটটি সে অর্থে জনপ্রিয় না। এটা খুবই দুঃখজনক এবং হতাশার ব্যাপার। আমি এই আর্টিকেলটি অনেকটা দায়মোচনের জায়গা থেকে লিখতে বসেছি। আমার মনে হয়েছে, Quora-র মত সাইটগুলো আমাদের দেশে জনপ্রিয় করে তুলা খুবই জরুরি, এতে পাঠকদের সমৃদ্ধ ও ভালো চিন্তা করার মানসিকতা তইরি হবে। Quora ব্যবহারের নানা দিক, সাইটটির ফিচারসহ নানা বিষয়ে আমার ভাবনা তুলে ধরছি। আশা করি, আমার লেখনী খুব একটা মজার মনে না হলেও Quora কে নিশ্চয়ই বেশ ইন্টারেস্টিং লাগবে।

why should i use quora

 

 

Quora কি?

Quora হচ্ছে প্রশ্ন-উত্তর ভিত্তিক একটি অনলাইন ফোরাম। সাইটটিতে মানুষ নানান বিষয়ে প্রশ্ন করে থাকেন এবং যারা সেসব বিষয়ে উত্তর জানেন সে নিয়ে উত্তর দিয়ে থাকেন। Quora খুবই অথেনটিক একটি প্ল্যাটফর্ম। এই সাইটের সবচে মজার ব্যাপার মজার হলো এখানে সাইকোলজিক্যাল মোটিভেশন পাওয়া যায়। কন্টেন্টগুলো খুবই গোছালো, ডেফিনিটিভ এবং ওয়েল রিসোর্সড। বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, সাহিত্য, সংস্কৃতি, দর্শন, অর্থনীতি, চিকিৎসা, প্রকৌশল, সাম্প্রতিক খবরারখবর সহ সব ধরণের বিষয় নিয়ে আলাপ আলোচনা হয় এই সাইটটিতে। ২০০৯ সালে দুজন পুরনো ফেসবুক এমপ্লয়ি  Adam D’Angelo ও Charlie Cheever – Quora সাইটটি প্রতিষ্ঠা করেন।  Adam D’Angelo কে Quora কে এইভাবে বর্ণনা করেছেন –

Quora connects you to everything you want to know about. Quora aims to be the easiest place to write new content and share content from the web. We organize people and their interests so you can find, collect and share the information most valuable to you.

সাধারণত রিসার্চ, ইনফরমেশন, ইন্টারেস্ট ও সামাজিক যোগাযোগের জন্য বিশ্বের বিশাল সংখার মানুষ Quora ব্যবহার করে থাকেন। এইখানে যেসব প্রশ্ন ও উত্তর খুঁজে পাওয়া যাবে সবকিছুই ইউজাররা নিজেরা তইরি করেছেন – বলা যেতে ভলেন্টিয়ারি কম্যুনিটি ফোরাম। বিশ্বের নানা রকম আর চিন্তার মানুষের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বেশ ভালোভাবে অত্যন্ত জনপ্রিয়তার সাথে quora সাইটটি দিন দিন সমৃদ্ধ থেকে সমৃদ্ধতর হয়ে উঠছে। বাংলাদেশে Quora সে অর্থে জনপ্রিয় না হলেও বিশ্বের ক্ষমতাধর নেতা থেকে শুরু করে রাজনিতীক, বিজ্ঞানী, প্রযুক্তিবিদ, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, বিজনেসম্যান, সাইক্রিয়াট্রিস্টসহ নানান পেশার আর বিচিত্র চিন্তার মানুষ Quora তে দিনরাত পড়ে থাকেন, লেখালেখি করেন, তর্ক বিতর্ক করেন।

Barack Obama, Irrfan Khan, Hans Zimmer, Sheryl Sandberg Jeff Hammerbacher, Drew Houston,Mark Zuckerberg, Jimmy Wales- সহ আরো অনেক বিখ্যাত ও জনপ্রিয় মুখ Quoraতে দেখা মিলবে। আপনার মাথায় যদি নানান রকম প্রশ্ন সকাল-দুপুর ঘুরঘুর করে, আপনার যদি জানতে ইচ্ছে হয় যে আপনি যেটা ভাবছেন সেটা আদো সঠিক কিনা কিংবা এই বিষয়ে অন্যেরা কি ভাবছে, উক্ত বিষয়ে অন্যদের মতামত কি হতে পারে –তাহলে আপনার জন্যই Quora। যা জানেন না কিন্তু জানতে চান তা নিয়ে প্রশ্ন করুন, আপনার জানা বিষয়গুলো নিয়ে উত্তর লিখুন, ভালো লেখকদের অনুসরণ করুন এবং মেতে উঠুন প্রশ্ন আর উত্তরের বুদ্ধিভিত্তিক খেলায়।

যেভাবে Quora ব্যবহার শুরু করবেন?

Quora তে ব্যক্তিগত একাউন্ট খোলার সুযোগ রয়েছে। একাউন্ট খোলার প্রক্রিয়াটি খুবই ইউজার ফ্রেন্ডলি। দুই উপায়ে quora তে সাইন আপ করা যায়। মেইল আইডিসহ দুয়েকটা প্রাসঙ্গিক তথ্য দিয়ে যেকেউ খুব সহজেই আইডি খুলে নিতে পারবেন। এছাড়াও ফেসবুক বা টুইটার একাউন্ট দিয়েও Quora তে একাউন্ট খোলা সম্ভব। Quora রিয়েল নেম পলিসি মেনে চলে। আপনি যদি হাংকি-পাংকি-কাক-বিড়াল-আকাশ-বাতাস টাইপ কিছু নাম দিয়ে ইউজ করেন, তাহলে ক’দিন পর নেম চেঞ্জ রিকুয়েস্ট পাঠাবে ওরা। ঠিকঠাক না করলে আপনার স্বাদের আইডি ব্যান খাওয়ার পসিবলিটিও রয়েছে। যাহোক, একাউন্ট খোলার পর দুয়েকটা ইজি স্টেপ আপনাকে কমপ্লিট করতে বলা হবে, যেমন- নিজের প্রোফাইল ছবি দেয়া, বন্ধু যোগ করা ইত্যাদি। একাউন্ট খোলার পরপরই Quora প্রথমেই আপনাকে এই প্রশ্নটি সাজেস্ট করবে- How do I get started using Quora?”.   get started using quoraবিগিনারদের জন্য এই প্রশ্ন দিয়েই Quora ব্যাবহারের সাথে পরিচিত হওয়া শুরু করা যেতে পারে। তারপরপরই আসবে আপনার ফিড বা টাইমলাইন। Quora তে ফিডের ব্যাপারে খুব গুরুত্ব দেয়া হয়ে থাকে – মানে আপনি আপনার ওয়ালে কি ধরণের টপিকের আলোচনা দেখতে চান, আপনার কিসে কিসে ইন্টারেস্ট আছে, কাকে ফলো করতে চান এসব প্রথম দিকে ভালোভাবে সিলেক্ট করতে ইম্পাসাইজ করে। Quora-র ফিডইতো সমস্ত কিছু – ভালো ফিড না বানাতে পারলে সাইটটির যে আসল মজা সেটির স্বাদ কখনোই পাওয়া হবে না। সো ফিড কামস ফার্স্ট। আপনার ফিডটি মুলত ইন্টারেস্টেড টপিকস, পশ্ন-উত্তর ও আপনার পছন্দের ব্যক্তিদের আলাপ আলোচনা দিয়ে ঘেরা থাকবে। প্রথম দিকে আপনার সাধারণত যেসব বিষয় পছন্দ সেগুলো অনুসরণ করা উচিত। দুচারদিন ব্যবহার করলে আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন কীভাবে প্রশ্ন করতে হয়, কাকে ফলো করা উচিত-অনুচিত। এছাড়াও কোন একটা প্রশ্নের পাশাপাশি সিমিলার টপিকস বা পিপল শো করে, সেগুলোও আপনি ধীরে ধীরে চুজ করতে পারেন। এতে আপনার ফিডটি আরো রিচ হবে।

কীভাবে প্রশ্ন করবেন?

Quora তে খুব সহজেই প্রশ্ন করা যায়। একদম উপরের দিকে seacrh or ask questions নামে একটা মেন্যু আছে। সেখানে যে প্রশ্নটি করতে চান সেটি টাইপ করুন। মাথায় রাখতে হবে, Quora সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক-টুইটারের মত নয়। প্রশ্নের গুণগত মান রক্ষা করা খুবই জরুরি।  ইংরেজি গ্রামারটিক্যাল ভুল যেন না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। প্রশ্ন করার সময় স্পেসিফিক প্রশ্ন করতে হবে যাতে উত্তরদাতা আপনার প্রশ্নটি সহজেই ধরতে পারেন। যিনি উত্তর লিখবেন তার উত্তর লেখার জন্য যেন উপযুক্ত ইনফরমেশন আপনার প্রশ্নে উল্লেখ থাকে- সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। How do e-commerce startups like One Kings Lane, Manpacks, and Dollar Shave Club handle the inventory fulfillment side of their business?  প্রশ্নটি একজন উত্তরদাতার জন্য বেশ ইনফরমেটিভ। ইকমার্স সাইট নিয়ে এমনভাবে প্রশ্নটি করা হয়েছে যাতে উত্তরদাতার জন্য উপযুক্ত স্কোপ রয়েছে। একইসাথে স্পেসিফিক্যালি একটা সাইড নিয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে – ফলে ঐ স্পেসিফিক সাইড নিয়েই আনসারগুলো উঠে এসেছে। আরেকটি প্রশ্নের লিঙ্ক উল্লেখ করছি আমি – হাইয়েস্ট ভিউড কুশ্চেন। What are some mind-blowing facts that sound like ‘BS’, but are actually true? – এই প্রশ্নটি ১২ মিলিওন বার ভিউ হয়েছে। What are the most viewed Quora questions? এই লিঙ্কটি ফলো করলে মোস্ট ভিউড প্রশ্নগুলো সম্পর্কে ডিটেইলড ধারণা পাওয়া যাবে।  প্রশ্ন করার পলিসি ও গাইডলাইন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাইলে এই লিঙ্ক ফলো করুন – Quora Question Policies and Guidelines  Quora তে উত্তরদাতা বেশ দীর্ঘ ও ইনফরমেটিভ উত্তর লিখতে অভ্যস্ত। আপনার প্রশ্ন যত ভালো হব, তত রিচ উত্তর পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

উত্তর দেয়া প্রসঙ্গে

Quora-র মানসম্মত উত্তরই Quora কে আলাদা জায়গায় দাঁড় করিয়েছে। Quora তাই ইউজারদের প্রশ্ন-উত্তর এই দুটি বিষয়কে অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে। উত্তর লেখার সময় অবশ্যই সৎ ও সঠিক উত্তরটি লেখা উচিত। রিসোর্স-রেফারেন্স দিয়ে উত্তর লেখলে সেটির গ্রহণযোগ্যতা বেশী হবে। যারা একদমই নতুন তাদেরকে নিজের সর্বোচ্চটা দিয়ে উত্তর লেখার চেষ্টা করা উচিত। বিগিনারদের জন্য যে বিষয়ে লিখছেন যে বিষয়ে ভালো তথ্য সংগ্রহ করে উত্তর লেখার অভ্যেস করা উচিত। এতে কোন একটি বিষয়ে আপনি যা জানেন পড়াশুনা করার ফলে আপনার জানার জগত বিস্তারিত হবে এবং আপনার ভালো উত্তর লেখার জন্য রসদও নিজের সংগ্রহে থাকবে। এমনও হতে পারে, আপনার একটি উত্তরই আপনাকেও হাজার হাজার লাইক, আপভোট, ফলোয়ার এনে দিচ্ছে। উত্তর ভালো না হলে Quora সেটিকে হাইড করে দেয়। ব্যান খাওয়ার সম্ভাবনা থাকে কখনো কখনো। ভালো প্রশ্ন করার জন্য যেসব বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে এগুলো নিয়ে Quora-র ডিটেইলড অফিশিয়াল ডকুমেন্টেশন রয়েছে। আগ্রহী পাঠকরা What does a good answer on Quora look like? What does it mean to “be helpful”? – শিরোনামের আর্টিকেলটি পড়ে দেখতে পারেন।

Quora- সাইটের অ্যানাটমি বুঝতে নিচের ছবিটি মনোযোগ দিয়ে লক্ষ করুন। তীর চিহ্নের মাধ্যমে প্রশ্ন-উত্তর, প্রশ্নকর্তা, এডিটর, এডমিন কমেন্টস, রিভিউ এসব স্পষ্ট করে দেখানো হয়েছে। Quora-তে মুলত এসবই ঘটে থাকে। ছবির নিচে দিকে সিমিলার ইন্টারেস্ট ইউজারদের প্রাইভেট মেসেজিং কনসেপ্টটা ফুটে উঠছে।

Anatomy of Quora
Anatomy of Quora

ইনবক্স, আপভোট-ডাউনভোট, ব্লগিং, সেশন সহ অন্যান্য ফিচার

ফেসবুকের মত Quora তেও ইনবক্স করার সুযোগ রয়েছে। আপনি চাইলে অন্যকে প্রাইভেট মেসেজ পাঠাতে পারেন। এটি মুলত যাদের সাথে আপনি Quora তে কানেক্টেড রয়েছেন তাদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য। এটি বেশ মজার একটা টুল কারণ একই মননের ও চিন্তার মানুষদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ এবং ইন্টেলেকচুয়াল আলাপ আলোচনা করার এমন সুযোগ আপনি ফেসবুকসহ অন্যান্য সাইটে পাবেন না। তাছাড়াও ফালতু বিষয়ে মজা করার অভ্যস্ততা বা সংস্কৃতি quora তে নেই। এই সাইটটি শুরু থেকেই অসাধারণ বুদ্ধিভিত্তিক চর্চার প্ল্যাটফর্ম হিসেবে নিজেকে অন্য মাত্রায় দাঁড় করিয়েছে।

Quora ব্লগ ফিচারটি বেশ জনপ্রিয়। ইউজাররা চাইলে Quora তে ব্লগ লিখতে পারেন। এছাড়াও নানান বিষয়ের জনপ্রিয় লেখকদের ব্লগ ফলো করার সুযোগ রয়েছে। টপিকস অনুসরণ করে আপনি আপনার ইন্টারেস্টেড বিষয় আসয় নিয়ে বিস্তারিত জানতে পারেন। Quora মানেই পড়াশুনা, এই পড়াশুনা পাঠ্যবইয়ের মত বোরিং না। এখানে অসংখ্য মানুষ নানান বিষয়ে মতামত দিচ্ছেন, কোন একটি টপিকসে ডিটেইলস আর্টিকেল লিখছেন। Quora প্রায়ই নানান রকম সেশন আয়োজন করা হয়ে থাকে। তখন বিখ্যাত সব ব্যক্তিদের যারা Quora ব্যবহার করে থাকেন তাদেরকে প্রশ্ন করার সুযোগ থাকে। এইতো সম্প্রতি জনপ্রিয় ক্রিকেট কমেন্টেটর হার্শা ভোগলে, আমেরিকার সিনেটর ও প্রেসিডেনসিয়াল ক্যান্ডিডেট বিল ক্লিন্টন ও গুগলের রিসার্চ ডিরেক্টর পিটার নরভিগের সেশন অনুষ্ঠিত হলো। আপকামিং সেশন সমন্ধে ধারণা পেতে চাইলে লিঙ্কটি দেখতে পারেন। সুবিধার জন্য Quora-র ফেসবুক পেইজটি লাইক দিয়ে রাখতে পারেন। ভালো টপিকস কিংবা সেশনের ব্যাপারে পেইজে নিয়মিত আপডেট Quora তে আপভোট ডাউনভোট ফিচার রয়েছে। এ দুটি ফিচার দিয়ে আপনার মন্তব্য বা লেখা অন্যদের পছন্দ বা অপছন্দ হয়েছে কিনা সেটি বুঝা যায়। উত্তর পছন্দ হলে সেটিকে আপনি আপভোট করা হয় নইলে ডাউনভোট। এটি quorar-র আনসারগুলো ফিল্টার করার ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। যেসব প্রশ্নে আপভোট বেশী সেগুলো আপনার ফিডে বেশী দেখানো হবে। quora তে এছারাও রয়েছে কমেন্ট সেকশন। কারো উত্তরের নিচে আপনি ফেসবুকের মত কমেন্ট করতে পারবেন। কোন একটি উত্তর বা টপিক যদি আপনার অন্য কোন সামাজিক সাইটে শেয়ার করতে ইচ্ছে হয় সেটি আপনি সামাজিক সাইটগুলোতে শেয়ার করতে পারেন। এছাড়াও হোমপেইজের ডানপাশের Trending Now ফিচারে সারা বিশ্বের ট্রেন্ডিং ইস্যুগুলো পিনড করা থাকে। এই ফিচারটি থেকে সাম্প্রতিক সময়ের বহুল আলোচিত-সমালোচিত বিষয়গুলো সম্পর্কে খুব সহজেই ধারণা পাওয়া সম্ভব। View on your Answers অপশন ব্যবহার করে আপনি সহজেই জানতে পারবেন, আপনার মন্তব্য বা উত্তরগুলো কজন মানুষ ভিউ করেছে, এটি খুবই লোভনীয় ফিচার। আপনার যত ভিউয়ার বাড়বে Quora ব্যবহারে ততই আপনার আগ্রহ বাড়তে থাকবে, ইচ্ছে করবে আরো ভালো করে উত্তর দেই, আরো সমৃদ্ধ প্রশ্ন করি। Quora অত্যন্ত বুদ্ধিভিত্তিক একটি জায়গা। নিয়মিত Quora ব্যবহার আপনার চিন্তার জায়গাকে প্রসারিত করবে, আপনার ভাবনার জগত হয়ে উঠবে বিস্তারিত ও সুন্দর।

 

হয়ে উঠুন সেরা লেখক

আপনি Quora ব্যবহার করছেন, প্রশ্ন-উত্তর খেলা চলছে, ব্লগিং চলছে, ইন্টারেস্টিং সেশনগুলোতে প্রশ্ন করেছে, পছন অপছন্দ কমেন্টে জানাচ্ছেন। এতেই কি সব? নিশ্চয়ই না। Quora তে চাইলে আপনি নিজেকে আলাদা করে তুলতে পারেন। হতে পারেন বছরের সেরা লেখক। কোন একটা বিষয়ের শ্রেষ্ট ভিউড রাইটারসহ আরো অনেক কিছু। এরকম কিছু হতে গেলে আপনাকে রিসোর্চ নিয়ে লিখতে বসতে হবে, ডেফিনিটিভ আনসার দিতে হবে, লেখার সময় সবদিক গুছিয়ে উত্তর দিতে হবে। কোন একটা টপিকসে আপনার যে দক্ষতা সেটি আপনার উত্তর লেখার ধরনে, বর্ণনায় ফুটে উঠতে হবে।

 

Be Nice, Be Respectful পলিসি

Quora-র অন্যতম প্রধান পলিসির নাম হচ্ছে – Be Nice, Be Respectful।  Quora অফিসিয়াল পলিসি overview তে উল্লেখ করা হয়েছে –
A core Quora principle (“Be Nice, Be Respectful”) requires that people treat other people on the site with civility, respect, and consideration. Assume that others on the site are also trying to make it a great resource. Respect opposing or differing opinions, beliefs and conclusions. Try to listen to and understand others you may disagree with. Encourage others on the site to also be welcoming and respectful.

যেহেতু নানা রকমের ও মননের মানুষ Quora ব্যবহার করে থাকেন তাই কোনভাবেই কারো চিন্তা বা মতের অসম্মান করা যাবেনা। কাউকে অশ্রদ্ধা বা ব্যক্তিগত আক্রমণ করা যাবেনা। ভিন্ন মতের মানুষ ও মতকে শ্রদ্ধা করতে হবে। কোন কন্টেন্টে অশোভন বা অশালীন মন্তব্য করা যাবেনা। পার্সোনাল হ্যারাজমেন্ট, হেইট স্পিচ, জেন্ডার ডেসক্রিমিনেশন এসব পুরোপুরি নিষিদ্ধ। কাউকে ইনসাল্ট করা করে কিংবা কেউ অপমানিত হন এমন মন্তব্য করা যাবেনা। Quora খুবই গুরুত্বের সাথে এ পলিসিটি নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। তাই নিউবিদের এই বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

বাংলাদেশ, বাংলাদেশী পাঠক ও Quora  

বাংলাদেশ বিষয়ে Quora তে খুব একটা কন্টেন্ট নেই। এর মূল কারণ আমাদের Quora ইউজারের সংখ্যা খুবই কম। হাজারে ১০ জন পাওয়া যায় কিনা তাও সন্দেহ। আমরা যারা Quora ব্যবহার করি আমাদের আশপাশের মানুষদের Quora ব্যবহারে উৎসাহিত করা উচিত। Quorar-র যে ভালো দিক সেগুলো বুঝানো উচিত। অন্য যেকোন সাইটে মানুষ এডিকটেড হলে সেখান থেকে ক্ষতির সম্ভাবনা থাকে, কিন্তু আমার মনে হয় Quora-ই একমাত্র কম্যুনিটি বেইজড সাইট ক্ষতির বিন্দুমাত্র সম্ভাবনা নেই। আমাদের দেশে ফেসবুকের যে বিশাল জনপ্রিয়তা সে জনপ্রিয়তার মোড় ঘুরিয়ে যদি Quora তে নেওয়া যায় তাহলে খুবই প্রোডাক্টিভ কিছু ব্যাপার ঘটবে। আমাদের তরুণদের এ বিষয়ে গ্রুমিং করা যেতে পারে। যত বেশী Quora টাইপ সাইটের পাঠক তইরি হবে তত বুদ্ধিভিত্তিক ও চিন্তাশীল ভাবনার প্রসার ঘটবে, ভালো পাঠক তইরি হবে, আমাদের মাঝে বিজ্ঞানভিত্তিক যৌক্তিক চিন্তাভাবনা করার তাগিদ তইরী হবে।

Quora -র জনপ্রিয়তা বুঝাতে নিচে দুটো ছবি সংযুক্ত করলাম। ছবি দুটো লক্ষ করলে বুঝা যাবে দিন দিন Quora-র গ্রোথ রেট কতখানি র‍্যাপিড। আর Quora-র ভিজিটর কি পরিমাণ বাড়ছে সময়ের সাথে। এই জনপ্রিয়তার মিছিলে আমাদের শামিল হওয়ার এখনি মোক্ষম সময় মনে করি।

quora-growth-matrix quora-no.of-visitors-matrix

সো হ্যাপি Quora রিডিং—কুশ্চেনিং-আনসারিং

Comments

comments

4 Comments

  1. জহির উদ্দীন তুহিন

    প্রোগামিং এর আলোর ফেরীওলা রবিউলের প্রোগ্রামিং এর পথচলা শুভ হোক।

  2. নিজাম উদ্দিন নিরব

    সম্পূর্নটা তুই নিজে লিখছিছ?? Great writing… এত বড় লেখা পড়তে আমার বিরক্ত লাগে,কিন্তু তোর লেখাটা পড়তে একদমই বিরক্ত লাগে নাই।
    Keep it up…
    ভাবতেছি আমিও একটা ID খুলবো Quora তে 🙂

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *